Spread the love

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরায় তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ) ধর্ষণের ঘটনায় ১৬টি মামলা দায়ের হয়েছে। একইভাবে নারী নির্যাতনের ঘটনায় ৩৬টি, মানব পাচারের ঘটনায় ২টি, পর্নোগ্রাফি আইনে একটি, এসিড নিক্ষেপের ঘটনায় একটি, সিঁধেল চুরির ঘটনায় ৮টি, অস্ত্র আইনে একটি, চোরাচালানের ঘটনায় ৭টি, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা ১৯৮টি, গাড়ি চুরির ঘটনায় একটি, অন্যান্য চুরির ঘটনায় ২২টি, সড়ক দুর্ঘটনায় ৭টি ও ২৪৫টি অন্যান্য মামলা রুজু হয়েছে।

শনিবার (১৮ মে) সাতক্ষীরা শহরের কোরাইশী ফুডপার্কের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত ‘সাতক্ষীরায় মানবাধিকার পরিস্থিতি ও করণীয়’ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় মানবাধিকার সংস্কৃতি ফাউন্ডেশন (এমএসএফ) এর পক্ষে এই তথ্য প্রকাশ করা হয়।

সাতক্ষীরা ডিস্ট্রিক্ট হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার নেটওয়ার্ক এই সভার আয়োজন করে। সভায় জানুয়ারি-মার্চ মাসে সাতক্ষীরায় ঘটে যাওয়া মানবাধিকার সংক্রান্ত বিভিন্ন ঘটনা বিশ্লেষণ করা হয়।

সভায় ডিস্ট্রিক্ট হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার নেটওয়ার্কের আহবায়ক অ্যাড. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরা-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. আশরাফুজ্জামান আশু। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য লায়লা পারভীন সেঁজুতি।

ডিস্ট্রিক্ট হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার নেটওয়ার্কের সদস্য সচিব অ্যাড. মুনিরুদ্দীনের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন, মানবাধিকার সংস্কৃতি ফাউন্ডেশনের (এমএসএফ) কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী মোহাম্মদ টিপু সুলতান, শিক্ষাবিদ প্রফেসর আব্দুল হামিদ, প্রফেসর ড. দিলারা বেগম, সাংবাদিক এম কামরুজ্জামান, জেলা পরিষদের সদস্য এড. শাহনেওয়াজ পারভীন মিলি, আওয়ামী লীগ নেতা এড. আজহারুল ইসলাম, সুজন সভাপতি পবিত্র মোহন দাস, এড. নাজমুন নাহার ঝুমুর, এড. আসাদুজ্জামান দিলু, সাবেক কাউন্সিলর ফারহা দিবা খান সাথী, সাংবাদিক আব্দুস সামাদ, এড. বদিউজ্জামান, নারীনেত্রী ফরিদা আক্তার বিউটি, এড আল মাহমুদ পলাশ প্রমুখ।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি মো. আশরাফুজ্জামান আশু বলেন, সাতক্ষীরায় মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী, দুর্নীতিগ্রস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টিকারীদের কোনোভাবেই প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। তবে, মানবাধিকার রক্ষায় জনগণকে ন্যায্য অধিকার আদায় করতে সচেষ্ট হতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য লায়লা পারভীন সেঁজুতি বলেন, নিজের অধিকার নিজেই আদায় করে নিতে হবে। তা না করে আমরা আপস করে ফেলি। অন্যায়ের প্রতিবাদ না করে অন্যায়কে প্রশ্রয় দেই। বর্তমান সরকার মানবাধিকার পরিস্থিতি আরও উন্নীতকরণে অত্যন্ত আন্তরিকভাবে কাজ করছে। মানুষের ব্যক্তি স্বাধীনতা বেড়েছে। এখন মানুষকেই এগিয়ে আসতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *