নিজস্ব প্রতিনিধি: ভোমরা বন্দরে প্রবেশে ট্রাকে চাঁদাবাজির ঘটনায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করায় স্থানীয় এক যুবকে পিটিয়ে আহতের ঘটনাও ঘটেছে। এ নিয়ে ভোমরা বন্দর এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। এ ঘটনায় একটি পরিকল্পিত মিথ্যা মামলাও হয়েছে।

ভোমরায় অবস্থানরত একাধিক ট্রাক চালকরা জানান, রোববার ভোমরা বাঁশকল এলাকায় ট্রাক প্রতি ৫০ থেকে ১০০ শ টাকা জোরপূর্বক চাঁদা আদায় শুরু করে কতিপয় ব্যক্তি। জনৈক ডাম্পার ট্রাক চালক ওই চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে চাঁদা আদায়কারীদের সাথে বিরোধ বাধে। এসময় ভোমরা বন্দর এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে অচল হয়ে পরে ভোমরা বন্দর এলাকা। এসময় ভোমরা ট্রান্সপোর্ট এবং কর্মচারী এসোসিয়েশনের সদস্য সাদ্দাম নামের এক যুবক ওই চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করে। প্রতিবাদের সময় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে ভিআইপি ট্রাক ও ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে চাঁদাবাজির প্রতিবাদকারী সাম্মাদ হোসেনের উপর হামলা করে তারা। এসময় সাদ্দামকে বেদম মারপিট করে এবং সাদ্দাম চাঁদাবাজ বলে উল্টো এলাকায় মাইকিং করে অপপ্রচার করে। এঘটনায় স্থানীয়রা চাঁদা আদায়কারীদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের উপর চড়াও হয়।

এদিকে, সাদ্দাম হোসেনকে আসামী করে সদর থানায় একটি মামলা করা হয়েছে বলে জানা গেছে। মামলার ঘটনায় সোমবার রাতে ট্রাক চালকরা রাস্তায় ট্রাক আড় করে ধর্মঘট করছে বলে জানিয়েছেন ভোমরায় অবস্থানরত ট্রাক চালকরা। তারা এ প্রতিনিধিকে বলেন, সাদ্দামের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করা না হলে তাদের ধর্মঘট অব্যহত থাকবে বলে জানান।

এনিয়ে বর্তমানে ভোমরা বন্দরে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। কয়েক ঘন্টা পর রাত পৌনে ১১ টার দিকে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয় বলে জানা গেছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published.