নিজস্ব প্রতিনিধি: শোকাবহ আগস্টের প্রথম প্রহরে (১২:০১ মিনিট) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেছে জেলা তাঁতী লীগ। ১৫ আগস্টে নিহত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁর পরিবারের সকল শহিদের স্মরণে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।

মোমবাতি প্রজ্জ্বলনপূর্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় জেলা তাঁতীলীগের সভাপতি কাজী মারুফের সভপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শেখ আলমগীর হোসেনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ.হ.ম তারেক উদ্দীন, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আকতার হোসেন, সাংস্কৃতিক বিষয়ক শামিমা পারবীন রত্না, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আলী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক আয়েশা সিদ্দিকা, তাঁতীলীগের সহ-সভঅপতি এম জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহিদ হোসেন বাপ্পী, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এসএম আশিকুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জুয়েল হাসান, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি হাসানুজ্জামান নিশান, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ হাসান, সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হোসেন জুয়েল, ছাত্রনেতা আরাফাত প্রমূখ।

এসময় জেলা আ’লীগের সহ-সভঅপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু আহমেদ বলেন, আগস্ট বাঙালি জাতির কাছে বেদনাদায়ক একটি মাস। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ইতিহাসে নির্মমতার এক কালো অধ্যায় হিসেবে চিহ্নিত। ১৯৭৫ সালের এই দিনে মানবসভ্যতার ইতিহাসে সবেচেয়ে নিকৃষ্ট ও ঘৃণ্যতম হত্যাকান্ডের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। বুলেটের আঘাতে স্তব্ধ করে দেওয়া হয় বাঙালির অধিকার প্রতিষ্ঠা ও মুক্তি সংগ্রামের দ্ব্যর্থহীন বজ্রকণ্ঠ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.