সাতক্ষীরা: নৌকার বিরোধীতাকারিকে মনোনয়ন না দেয়ার দাবি সাবেক কৃষক লীগ নেতার – Satkhira Vision

November 25, 2020, 4:21 am

সংবাদ শিরোনাম :
ভালোবাসা মঞ্চের সম্মাননা স্মারক পেলো ‘স্বর্ণ কিশোরী নের্টওয়াক ফাউন্ডেশন’ সাতক্ষীরা: প্রতিবন্ধীর স্বপ্ন পূরণে সারথি হলেন উপজেলা চেয়ারম্যান বাবু সাতক্ষীরা: তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে ছাত্রদলের দোয়া কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দিল সাতক্ষীরা ল স্টুডেন্টস্ ফোরাম প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগ সভাপতির মৃত্যুতে বিবিসির শোক দেবহাটা: আ.লীগ নেতা রায়হান হত্যার ৭ বছরেও অধঁরা খুনীরা দেবহাটা: কুলিয়া ইউনিয়ন তাঁতী লীগের আহবায়ক কমিটি গঠিত সাতক্ষীরা: কবিরাজ দাদুর কান্ড! অবশেষে শ্রীঘরে! সাতক্ষীরা: ভারতীয় পাতার বিড়িসহ কাকডাঙ্গার মোফাখখের ও উজ্জল গ্রেফতার
সাতক্ষীরা: নৌকার বিরোধীতাকারিকে মনোনয়ন না দেয়ার দাবি সাবেক কৃষক লীগ নেতার

সাতক্ষীরা: নৌকার বিরোধীতাকারিকে মনোনয়ন না দেয়ার দাবি সাবেক কৃষক লীগ নেতার

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার দেবহাটার ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যারা প্রকাশ্যে নৌকা প্রতীকের বিরোধীতা করেছিল আসন্ন চেয়ারম্যান পদের উপ নির্বাচনে তাদেরকে নৌকার মাঝি না করার জন্য আ’লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন এক সাবেক কৃষকলীগ নেতা।

সোমবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মোতালেব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে দেবহাটা উপজেলা আ’লীগ ও এর অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের তৃণমূল নেতাকর্মী ও সমর্থকদের পক্ষে পারুলিয়া ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি ও ইউপি মেম্বর গাজী শহিদুল্লাহ এই আবেদন জানান।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বিগত ২০১৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচানে চেয়ারম্যান পদে জননেত্রী শেখ হাসিনার মনোনিত প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আব্দুল গণি নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। কিন্তু গত ৭ আগষ্ট তিনি মারা যাওয়ায় দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচন আসন্ন। কিন্তু সেই সময় যারা প্রকাশ্যে নৌকা প্রতীকের বিরোধীতা করে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর আনারস প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করে গণসংযোগ করেছিলেন তারা অনেকেই এখন নৌকার মাঝি হতে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন।

এসব ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন দেবহাটা উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও নয়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুজিবর রহমান, সাধারন সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি এবং এদের সাথেসঙ্গী হিসাবে উৎপ্রতভাবে জড়িত ছিলেন তদান্তিন সাংগঠনিক সম্পাদক সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন।

গাজী শহিদুল্লাহ অভিযোগ করে বলেন, উল্লেখিত ব্যক্তিরা ওই নির্বাচনের সময় নৌকার পোলিং এজেন্ট, কর্মী ও সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নৌকার পক্ষে কাজ না করার জন্য হুমকি ধামকি দিয়েছিলেন, এমনকি নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী অফিসও বন্ধ করে দিয়েছিলেন তারা। মরহুম আব্দুল গণি সেই সময় এসবের প্রমাণ জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে প্রতিবেদন আকারে দাখিল করেছিলেন। বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কঠোরভাবে নৌকা প্রতীকের বিরোধীতাকারী সেইসব নেতারা এখন উপ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হওয়ার জন্য দলীয় মনোনয়ন পেতে কেন্দ্রে দৌড় ঝাপ শুরু করেছেন।

তিনি বলেন, ইতিপূর্বে যারা আ’লীগের দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ছিল, দলের জন্য যারা নিবেতি প্রাণ, ত্যাগী ও দুঃসময়ের কান্ডারী, যাদের অতীত কার্যকলাপ সমালোচিত নয় তাদেরকে আসন্ন উপ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হিসাবে মনোনয়ন দেয়া হোক। যদি তা না করে উল্লেখিত বির্তকিত ব্যক্তিদের কাউকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয় তাহলে দেবহাটা উপজেলা আ’লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মাঝে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভের সঞ্চার হবে। তিনি পরীক্ষিত একজন ব্যক্তি যার কর্মকান্ড কখনো নৌকা বিরোধী ছিল না, এমন একজনকে আসন্ন দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার জন্য দলীয় প্রধান বাংলাদেশ আ’লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন।


 

 




All rights reserved © Satkhira Vision

Design & Developed BY Asha IT