করোনা উপসর্গের রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে পারেননি স্বাস্থ্যের ডিজি – Satkhira Vision

May 14, 2021, 9:24 am

সংবাদ শিরোনাম :
সাতক্ষীরা: ঈদ সামগ্রী নিয়ে অসহায়ের বাড়ি বাড়ি ছুটছেন সাঈদ হারানো টাকার ব্যাগ মালিককে ফিরিয়ে দিলেন পুলিশ সদস্য মোহায়মেনুল তালা: অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন সাংবাদিক নজরুল ইসলাম সাতক্ষীরা: এতিমদের সাথে ছাত্রলীগের ইফতার সাতক্ষীরা: সাপ্তাহিক সূর্যের আলোর উদ্যোগে কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ স্ত্রী হত্যা মামলায় সাবেক এসপি বাবুল আক্তার গ্রেফতার সাতক্ষীরা: ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া বিকাশের টাকা উদ্ধার করলো পুলিশ শ্যামনগর: আনসার ভিডিপি সদস্যদের মাঝে ঈদ শুভেচ্ছা প্যাকেজ বিতরণ তালাঃ হাজরাকাটীর সেলিম গাজীর পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ  কলারোয়া: ফেনসিডিলসহ মহিলা মাদক ব্যবসায়ী আটক
করোনা উপসর্গের রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে পারেননি স্বাস্থ্যের ডিজি

করোনা উপসর্গের রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে পারেননি স্বাস্থ্যের ডিজি

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম জানিয়েছেন, ‘মহাপরিচালক হবার আগে তিনি করোনা উপসর্গে অসুস্থ একজন সিনিয়র মেডিসিন বিশেষজ্ঞকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে পারেননি। পরে সেই চিকিৎসক মারা যান। মহাপরিচালক জানান, ওই চিকিৎসকের কোভিডের সব উপসর্গ ছিল, কিন্তু তিনি কোভিড পজিটিভ ছিলেন না। তাই দেশের হাসপাতালগুলোতে কোভিডের পাশাপাশি নন-কোভিড সার্ভিস চালু করা যায় কিনা ভেবে দেখতে হবে।’

বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের নথিসূত্রে এই তথ্য জানা গেছে। সেই সূত্রে জানা গেছে, গত ২৮ আগস্ট স্বাস্থ্য অধিদফতরের নব নিযুক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম কোভিড-১৯ এর জনস্বাস্থ্য বিষয়ক জাতীয় কমিটির সঙ্গে অনলাইন সভায় এই অভিজ্ঞতার কথা জানান।

পরে সিদ্ধান্ত হয় একই হাসপাতালে কোভিড ও নন-কোভিড সার্ভিস চালু রাখতে হবে। সভায় অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, ‘বর্তমানে ঢাকায় বড় বড় কিছু কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা কমে গিয়েছে।’ ২৮ আগস্টের তথ্য অনুসারে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতাল, কুর্মিটোলা হাসপাতাল, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, ঢাকা মহানগর হাসপাতাল, লালকুঠি হাসপাতাল, শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতাল, হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে অনেক শয্যা ফাঁকা থাকছে। তাই মাল্টি ডিসিপ্লিনারি হাসপাতালগুলোকে নন-কোভিড ঘোষণা করা যায় কিনা অথবা সীমিত আকারে কোভিড রেখে নন-কোভিড সার্ভিস চালু করা যায় কিনা সে বিষয়ে জানতে চান জনস্বাস্থ্য বিষয়ক কমিটির কাছে।

তিনি আরও বলেন, ‘মুগদা হাসপাতাল, হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে কোভিড রোগীর পাশাপাশি নন-কোভিড রোগীদের চিকিৎসা দেওয়ার সুযোগ থাকলেও সেটি তারা বন্ধ রেখেছে। কেবলমাত্র ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কোভিড নন-কোভিড রাখা হচ্ছে।’

সে প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের বর্তমান মহাপরিচালক জানান, ‘তিনি যখন ঢামেক হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান ছিলেন তখন তার অধীনেই দেশের আরেকজন সিনিয়র মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ভর্তি হন। তার কোভিড উপসর্গ ছিল কিন্তু তিনি কোভিড পজিটিভ ছিলেন না। তার এন্ডোসকপি করার জন্য আমি ঢাকা শহরের এমন কোনও হাসপাতাল নাই যেখানে যায়নি, কিন্তু কাউকে রাজি করাতে পারিনি। সে চিকিৎসক পরে মারা যায়।’

সেই কথা মনে করেই তিনি বলেন, ‘কোভিডের পাশাপাশি হাসপাতালগুলোতে নন-কোভিড সার্ভিস চালু করা যায় কিনা ভেবে দেখতে হবে। পরে সভায় সিদ্ধান্ত হয়, কোভিড, নন-কোভিড, টেস্ট ও অ্যাসিম্পটোমেটিক (উপসর্গবিহীন) কেস বিবেচনা করে পরিকল্পনা করতে হবে। ট্রায়াজ ব্যবস্থা পরিবর্তন করতে হবে। পাশাপাশি সার্ভিলেন্স এর জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে। একই হাপসাতালে কোভিড এবং নন-কোভিড সার্ভিস চালু করতে হবে।’


 

 




All rights reserved © Satkhira Vision

Design & Developed BY Asha IT