আশাশুনি: জামায়াত নেতার বিরুদ্ধে স্থানীয়দের মানববন্ধন – Satkhira Vision

April 11, 2021, 8:46 pm

সংবাদ শিরোনাম :
শ্যামনগর: ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বন্ধ হল বাল্যবিবাহ শ্যামনগর: উপকূলের ক্ষতিগ্রস্থ মানুষকে ফ্রি স্বাস্থ্য সেবা প্রদান কলারোয়া: সেবার দাফন টিমের সদস্যদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত সাতক্ষীরা: বন্ধুকে জবাই করে নিজের বাবাকে জানায় খুনি সাগর! সাতক্ষীরা: গাঁজা ক্রয়ের ২০০ টাকার জন্য বন্ধুকে জবাই করে খুন করে সাগর দেবহাটা: দূর্ঘটনায় নিহতের পরিবারের পাশে আওয়ামী লীগ নেতা বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমস-এ রৌপ্য পদক জয়ী দেবহাটার ইয়াছিন সাতক্ষীরা: একসাথে নেশা করতে যেয়ে কাশেমপুরে বন্ধুর চুরিকাঘাতে কিশোর নিহত কলারোয়া: বালিয়াডাঙ্গা বাজারে অগ্নিকাণ্ডে ৬ দোকান ভষ্মিভূত কলারোয়া: মুখ চেপে ধরে শিশুকে বলৎকার, রক্তক্ষরণ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি
আশাশুনি: জামায়াত নেতার বিরুদ্ধে স্থানীয়দের মানববন্ধন

আশাশুনি: জামায়াত নেতার বিরুদ্ধে স্থানীয়দের মানববন্ধন

আশাশুনি প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের জামায়াত নেতা কর্তৃক ভোগ দখলীয় সম্পত্তি জবর দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে স্থানীয়রা।

আজ বিকালে পাইকপাড়া প্রাইমারী স্কুলের সামনের সড়কে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তাগন বলেন, মাহতাব উদ্দিন দিং এর ওয়ারেশ আশরাফ উদ্দিনের ছেলে মানব কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি ও জামায়াত নেতা হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর এসএ মালিক ফেরদৌস হোসেনের ছেলে মহসিন আলমের ১৪/১৫ বছরের ভোগ দখলীয় এস ১০ খতিয়ানে এসএ ৮ ও হাল ১০ দাগে পৈত্রিক ১৬ শতক (জলকরসহ) ও স্কুলের কাছ থেকে ডিড নেওয়া ৯ শতক জমিতে অবৈধ প্রবেশ করে বাঁশের ঘেরাবেড়া দিয়ে জবর দখলের চেষ্টা করেন।

উল্লেখ্য, মহাতাব উদ্দিনের ওয়ারেশ জামাত নেতা হেলাল উদ্দিনের নামে ভুলক্রমে ১৩ শতক জমি বেশী রেকর্ড হয়েছে। জানতে পেরে অন্য ৫ মালিকের ওয়ারেশগন রেকর্ড সংশোধনের জন্য মামলা ১১৭৫/১৮ রুজু করেন। যা চলমান রয়েছে।

এরপরও মাহতাব উদ্দিন দিং ওয়ারেশ আশরাফ উদ্দিনের ছেলে মানব কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর উক্ত জমিতে অবৈধ প্রবেশ করে বাঁশের ঘেরাবেড়া দিয়ে জবর দখলের চেষ্টা করেন।

এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটনের দপ্তরে গ্রাম আদালতে ৫ জন বাদী হয়ে হেলাল উদ্দিন দিংকে বিবাদী করে পৃথক পৃথক ৫টি মামলা করলে ২১ ও ২৮ ডিসেম্বর দুদিন শুনানীকালে বিবাদী পক্ষকে অবৈধ ঘেরা উঠিয়ে নিয়ে পরবর্তীতে শুনানীর দিন ধার্য করে কাগজপত্র দেখে ও সরেজমিন মাপজোক করে উভয় পক্ষের জমির সীমানা নির্ধারণ করার সিদ্ধান্ত জানানো হলে উভয় পক্ষ মেনে নিয়ে যায় কিন্তু ৪ জানুয়ারী ধার্য দিনে বিবাদী পক্ষ উপস্থিত হয়নি।

তখন আদালতের সিদ্ধান্ত মোতাবেক গ্রাম পুলিশ অবৈধ বেড়া উঠিয়ে দিয়ে উভয় পক্ষকে ১১ জানুয়ারী দিন ধার্য করেন। কিন্তু বিবাদীরা আদালতের সিদ্ধান্ত অবমূল্যায়ন করে পত্রপত্রিকায় ষড়যন্ত্রমূক ভাবে সংবাদ প্রকাশ করিয়ে ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহের পাশাপাশি চেয়ারম্যানসহ বাদী পক্ষের সম্মান হানির চেষ্টা করেছে। মানবন্ধনে তাদের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবী জানান বক্তাগন।


 

 




All rights reserved © Satkhira Vision

Design & Developed BY Asha IT