দু’পায়ে পচন ধরা কলারোয়ার ফাহিমার চিকিৎসার আশ্বাস দিলেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক – Satkhira Vision

May 15, 2021, 2:32 pm

সংবাদ শিরোনাম :
সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে মৌয়াল নিহত সাতক্ষীরা: ঈদ সামগ্রী নিয়ে অসহায়ের বাড়ি বাড়ি ছুটছেন সাঈদ হারানো টাকার ব্যাগ মালিককে ফিরিয়ে দিলেন পুলিশ সদস্য মোহায়মেনুল তালা: অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন সাংবাদিক নজরুল ইসলাম সাতক্ষীরা: এতিমদের সাথে ছাত্রলীগের ইফতার সাতক্ষীরা: সাপ্তাহিক সূর্যের আলোর উদ্যোগে কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ স্ত্রী হত্যা মামলায় সাবেক এসপি বাবুল আক্তার গ্রেফতার সাতক্ষীরা: ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া বিকাশের টাকা উদ্ধার করলো পুলিশ শ্যামনগর: আনসার ভিডিপি সদস্যদের মাঝে ঈদ শুভেচ্ছা প্যাকেজ বিতরণ তালাঃ হাজরাকাটীর সেলিম গাজীর পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ 
দু’পায়ে পচন ধরা কলারোয়ার ফাহিমার চিকিৎসার আশ্বাস দিলেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক

দু’পায়ে পচন ধরা কলারোয়ার ফাহিমার চিকিৎসার আশ্বাস দিলেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক

বিশেষ প্রতিনিধি: দু’পায়ে পচন ধরা ফাহিমার চিকিৎসার আশ্বাস দিলেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস.এম মোস্তফা কামাল। সোমবার সকালে সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক এস.এম মোস্তফা কামাল ফোন করে খোঁজখবর নেন ফাহিমা খাতুন ও তার পরিবারের। সেই সঙ্গে তার চিকিৎসার ব্যাপারে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

গত শুক্রবার ‘ফাহিমার পা দুটি পচে গেছে, কাটার টাকা নেই’ শিরোনামে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। সংবাদ প্রকাশের পর মানবিক এ ঘটনাটি দৃষ্টিতে আসে জেলা প্রশাসকের।

এক মাস আগেও সুস্থ ছিলেন ফাহিমা খাতুন। যন্ত্রণার শুরুটা ছিল এক পায়ে ব্যথার মাধ্যমে। ওষুধ খাওয়ার পর ব্যথা না কমে বরং পচন ধরেছে সেই পায়ে। সেই পচা অংশ থেকে এখন খসে পড়ছে মাংস। এখন তার দুটি পা পচে গেছে। সেখান থেকে এখন পোকাও বের হচ্ছে।

স্ত্রী ফাহিমা খাতুনকে নিয়ে অসহায় সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নের পাকুড়িয়া গ্রামের ভ্যানচালক স্বামী ফজিজুল ইসলাম। চিকিৎসা করাতে পারছে না তার পরিবার। চিকিৎসক বলেছেন, পা কেটে বাদ দিতে হবে। তবে পা ফেলার টাকাও নেই ফাহিমা খাতুনের পরিবারের।

ফাহিমা খাতুনের মেয়ে সোনিয়া আক্তার জানান, ডিসি স্যার ফোনে কথা বলে চিকিৎসার সহযোগিতার কথা বলেছেন। এবার হয়তো আমার মায়ের চিকিৎসা হবে। আজই মাকে নিয়ে হাসপাতালে যাব।

এর আগে সোনিয়া আক্তার জানিয়েছিলেন, বাবার ভ্যান চালানো উপার্জন দিয়ে কোনো রকমে সংসার চলে আমাদের। বাবাও অসুস্থ। এক মাস আগে মায়ের পায়ে ব্যথা শুরু হয়। তখন ডাক্তার দেখানো হয়। ডাক্তারের পরামর্শে ওষুধ খাওয়ানোর পর থেকে পায়ে পচন ধরেছে। চলাফেরা বন্ধ হয়ে যায়। এখন পায়ের মাংস পচে পুজ বের হচ্ছে। রোগটির নাম ডাক্তার বলতে পারছে না। তবে ডাক্তার বলেছেন, পা কেটে ফেলতে হবে। আমার বাবার টাকা নেই। পা কাটার টাকা নেই বাবার কাছে।

জেলা প্রশাসক এস.এম মোস্তফা কামাল জানান, ফাহিমাকে নিয়ে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করানোর কথা জানিয়েছি। সেখানে ভর্তির পর সিভিল সার্জনসহ চিকিৎসকদের পরামর্শ মতে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া ওষুধপত্রসহ চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়গুলো দেখা হবে।

তিনি আরও বলেন, চেষ্টা করবো তাকে সুস্থ করে তোলার। একজন অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো এটা আমাদের দায়িত্ব।


 

 




All rights reserved © Satkhira Vision

Design & Developed BY Asha IT