দেবহাটা প্রতিনিধি: নির্বাচনী প্রচারনার নামে আচরণ বিধি ভঙ্গ করে সম্পুর্ণ বে-আইনীভাবে দলবল নিয়ে শোডাউন, ভ্রাম্যমান পিকআপ ভ্যানে ব্যান্ডপার্টি এবং সাউন্ডবক্স নিয়ে প্রজেক্টরের মাধ্যমে অযাচিত ভিডিও, নাটক, সিনেমা প্রদর্শনী, চিত্রজগতের নায়ক-নায়িকা ও কর্মচারীদের দিয়ে ভোট চাওয়ার নানান ভিডিও ফুটেজ ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানো এবং মাইকে জনগনকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা ও বিনামুল্যে রক্ত দেয়ার কথা বলে প্রচারণা চালাচ্ছেন দেবহাটা উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী গৌরাঙ্গ মহালদার স্পর্শ (জিএম স্পর্শ)।

প্রতিদিনই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় নির্বাচনী প্রচারনার নামে বে-আইনীভাবে দলবল নিয়ে শোডাউন, ভ্রাম্যমান পিকআপ ভ্যানে ব্যান্ডপার্টি এবং সাউন্ডবক্স নিয়ে প্রজেক্টরের মাধ্যমে অযাচিত ভিডিও, নাটক, সিনেমা প্রদর্শনীর মাধ্যমে প্রকাশ্যেই নির্বাচনী আচরনবিধি লঙ্ঘন করছেন তিনি।

পাশাপাশি ফেসবুক সহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঢুকলেই ছড়াছড়ি করছে জিএম স্পর্শের জন্য ভোট চেয়ে চিত্র নায়ক আলেক জেন্ডার বো, নাট্য অভিনেতা ডিএ তায়েব এফডিসির কর্মচারী লাভলী বেগমের ভিডিও।

শুধু তাই নয়, এ যাবতকাল দেবহাটার কোন উন্নয়ন কিংবা জনসেবায় জিএম স্পর্শ ও তার স্বামী গৌরাঙ্গ মহালদাল সৈকতকে মানুষ খুঁজে না পেলেও এখন সকাল সন্ধ্যা জোর মাইকিংয়ের মাধ্যমে আগামীতে মানুষকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা ও বিনামুল্যে রক্ত দেয়া হবে বলে প্রচারণা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেয়া অপর প্রার্থীদের।

নিয়মিত আচরনবিধি লঙ্ঘনের প্রতিকার চেয়ে জিএম স্পর্শের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ ও তার প্রার্থীতা বাতিল চেয়ে সোমবার দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার ইকবাল হোসেনের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন অপর প্রার্থী ও বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা পারভীন।

এছাড়াও অপর প্রার্থী প্রিয়াংকা রানী সহ অন্যান্যরা তাদের অভিযোগে বলেন, নির্বাচনী প্রচারনার নামে জিএম স্পর্শ নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে মানুষকে ধোকা দিয়ে যাওয়ার বিষয়ে তারাও পৃথকভাবে নির্বাহী অফিসারকে মৌখিক অভিযোগে জানিয়েছেন।

জি এম স্পর্শের স্বামী জি এম সৈকত এ ব্যাপারে বলেন, কোথাও কোন মটর সাইকেল শোডাউন করা হয়নি। যে ছবিতে মটর সাইকেল শোডাউন দেখানো হয়েছে ওটি মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার দিনের ছিল। আর ব্যান্ড পার্টি বা অন্যান্য যে সব বিষয় বলা হচ্ছে ওগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা । আমরা প্রজেক্টরের মাধ্যমে আমাদের মানবিক কাজ গুলো জনগনের সামনে তুলে ধরছিলাম কিন্তু সহকারী রিটার্ণিং কর্মকর্তা নিষেধ করার পর সেগুলো বন্ধ করে দিয়েছি। নির্বাচনী বিধি লঙ্ঘন হয় আমরা এমন কোন কার্যক্রম করছি না।

দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার ইকবাল হোসেন বলেন, নির্বাচনী আচরন বিধি লঙ্ঘন করা হলে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে প্রার্থীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।