বাবার লাশের অপেক্ষায় যমজ শিশু – Satkhira Vision

May 15, 2021, 3:17 pm

সংবাদ শিরোনাম :
সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে মৌয়াল নিহত সাতক্ষীরা: ঈদ সামগ্রী নিয়ে অসহায়ের বাড়ি বাড়ি ছুটছেন সাঈদ হারানো টাকার ব্যাগ মালিককে ফিরিয়ে দিলেন পুলিশ সদস্য মোহায়মেনুল তালা: অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন সাংবাদিক নজরুল ইসলাম সাতক্ষীরা: এতিমদের সাথে ছাত্রলীগের ইফতার সাতক্ষীরা: সাপ্তাহিক সূর্যের আলোর উদ্যোগে কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ স্ত্রী হত্যা মামলায় সাবেক এসপি বাবুল আক্তার গ্রেফতার সাতক্ষীরা: ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া বিকাশের টাকা উদ্ধার করলো পুলিশ শ্যামনগর: আনসার ভিডিপি সদস্যদের মাঝে ঈদ শুভেচ্ছা প্যাকেজ বিতরণ তালাঃ হাজরাকাটীর সেলিম গাজীর পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ 
বাবার লাশের অপেক্ষায় যমজ শিশু

বাবার লাশের অপেক্ষায় যমজ শিশু

এসভি ডেস্ক: পুরান ঢাকার চকবাজারের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে বাবা হারিয়েছে যমজ শিশু। তাদের বয়স মাত্র এক বছর।

তারা এইচ এম কাওসার আহমেদ ছেলে।

স্বজনরা জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ’র ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী কাওসার। চকবাজার শাহী জামে মসজিদ এলাকার আল-মদিনা ফার্মেসির স্বত্বাধিকারী ছিলেন তিনি। তার গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার হোমনা উপজেলায়।

কাওসারের ভাই হাফিজ আহমেদ বলেন, দোকানটির আয় দিয়ে নিজের পড়ালেখার খরচ চালাতেন তিনি।

পরিবারের ভরণপোষণের ভারও নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন।

প্রতিদিনের মতো বুধবারও ফার্মেসিতে যান কাওসার। কিন্তু ভয়াবহ আগুন তার প্রাণ কেড়ে নেয়। সঙ্গে মারা যায় একই দোকানে থাকা আরও কয়েকজন।

বৃহস্পতিবার সকালে কওসারের লাশের সন্ধানে ঢাকা মেডিকেল কলেজের হাসপাতালে যান স্বজনরা। তাদের সঙ্গে রয়েছে দুই শিশুও।

সন্তানের মৃত্যুতে বারবার মূর্চ্ছা যাচ্ছেন কাউছারের মা। কাঁদতে কাঁদতে বুক চাপড়ে বলছেন, ‘আমার কাউছার কই। আমার বুকের ধনকে আমার বুকে এনে দে।’

চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ আগুনে এখনো পর্যন্ত ৭০ জন নিহত হয়েছেন।

বুধবার রাত ১০টার দিকে এ আগুন লাগে। বৃহস্পতিবার সকাল নাগাদ আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ফায়ার সার্ভিসের ৩৭টি ইউনিটের পাশাপাশি কাজ করে বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টার।

এ ঘটনা আহত হয়েছেন আরও অর্ধশত। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, রাজ্জাক ভবনের নিচতলায় রাসায়নিক দ্রব্যের কারখানা ছিল। ভবনের পাশেই ছিল বেশ কিছু রেস্তোরাঁ। সেগুলোর প্রতিটিতে চার থেকে পাঁচটি করে গ্যাসের সিলিন্ডার রয়েছে। আগুন ছড়িয়ে যাওয়ায় এসব গ্যাস সিলিন্ডারও বিস্ফোরিত হয়েছে বলে ধারণা করছেন তারা।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ৩ জুন পুরান ঢাকার নিমতলীতে এক কেমিক্যাল গুদামে অগ্নিকাণ্ডে ১২৪ জনের প্রাণহানি হয়।


 

 




All rights reserved © Satkhira Vision

Design & Developed BY Asha IT