*/
দালাল রিপনকে ছাড়াতে সহযোগিদের দৌড়ঝাঁপ!

দালাল রিপনকে ছাড়াতে সহযোগিদের দৌড়ঝাঁপ!

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীর জেলা বিআরটিএ অফিসের শীর্ষ দালাল একাধিক অপকর্মের হোতা সদরের মুুকুন্দপুর গ্রামের আফসার মাস্টারের ছেলে হাফিজুল ইসলাম রিপন(৩৫) গ্রেফতারে তার সহযোগিদের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়ে গেছে। 

জানা যায়, দালাল রিপন ওরফে পালসার রিপন কয়েক বছর যাবৎ সি সি ক্যামেরায় নিয়ন্ত্রিত সাতক্ষীরা আদালত চত্তরে বসে প্রকাশ্যে মটর গাড়ির রেজিঃ, জমির রেকর্ডসহ সেবা নিতে আসা হাজার হাজার মানুষের নিকট থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রতারণা করে আসছিলো। গত কয়েক দিন পূর্বে ঢাকায় বাস চাপায় স্কুল ছাত্র-ছাত্রী নিহতের ঘটনায় দেশ জুড়ে আন্দোলন শুরু হলে সাতক্ষীরা বিআরটি এ কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে। অবশেষে গত ৮ই আগষ্ট বুধবার সাতক্ষীরা জেলা বিআরটিএ এর উপপরিচালক তানভীর আহম্মেদের অভিযোগের ভিত্তিতে সদর থানা পুলিশ ও অতিঃ জেলা ম্যাজিঃ অনিন্দিতা রায়ের উপস্থিতিতে জনাকীর্ণ আদালত চত্তরে অভিযান চালিয়ে সরকারী কর্ম কর্তাদের নকল সীল, বিআটিএ এর বিভিন্ন রকম কাগজ পত্রসহ হাতে নাতে শীর্ষ দালাল একাধিক অপকর্মের হোতা রিপন ওরফে পালসার রিপনকে আটক করে।

এ সময় প্রতারকের সহযোগীরা প্রশাসনের উপস্থিতি বুঝতে পেরে এলাকা ত্যাগ করে। রিপন আটকের সংবাদ মুহুর্তের মধ্যে এলাকায় জানাজানি হতেই মিন্টু সহ অন্যান্য সহযোগিরা বিভিন্ন মহলে দৌড় ঝাপ শুরু করেছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় আঃ আলিম, নজরুল, মোসলেম উদ্দীন সহ একাধিক ব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতিবেদককে জানান, আফসার মাস্টারের ছেলে হাফিজুল ইসলাম রিপন সহ সহযোগিরা জাল কাগজ পত্র, ভুয়া বিয়ে পড়ানো, ডিবি পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার মালিক হয়েছে। তাছাড়া বয়ারখোলা মসজিদ সংলগ্ন তারই এক সহযোগির নিকট থেকে নামে মাত্র জমি ক্রয় করে সরকারী খাস জায়গা দখল করে গড়ে তুলেছে বিলাশ বহুল দ্বিতল ভবন। তার রয়েছে অসংখ্য মৎস ঘের এবং ঐ ঘেরেই করেছে হাওয়া ভবন। এলাকায় তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা তো দুরের কথা কেহ কোন অপকর্মের প্রতিবাদ করার সাহস রাখে না।

এ বিষয়ে বল্লী ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের একজন প্রবীন নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, দালাল রিপন একজন স্বল্প শিক্ষিত ও জামাত বিএনপি পরিবারের সক্রিয় সদস্য।

তার একান্ত সহযোগী পিয়াজ মিন্টু ২০১৩ সালে অত্র এলাকায় দেশিয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে মহড়া দিয়েছে এবং অত্র এলাকার বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে টায়ের এ আগুন জ্বালিয়ে উল্লাস করেছে।  জননেত্রী শেখ হাসিনার নামে গালি গালাজ করেছে। যা এলাকাবাসি অনেকেই জানে। অথচ সে এতই দুর্দান্ত প্রকৃতির যে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আসার পরেও অধ্যবধি তার নামে কোন মামলা হয় নি।

কারন প্রশাসনের অনেক কর্ম কর্তার সাথে প্রকাশ্যে তার উঠাবসা নিয়ে সাধারণ মানুষ ছিল আতঙ্কিত। বর্তমানে একশ্রেণির সুবিধাভোগি দালাল রিপনকে ছাড়াতে বিভিন্ন মহলে লক্ষ টাকার মিশন নিয়ে মাঠে নেমেছে বলে নির্ভর যোগ্য সূত্রে জানা গেছে।

এলাকার সচেতন মহল উক্ত দালালের সহযোগীদের গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় আনতে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media


Deprecated: File Theme without comments.php is deprecated since version 3.0.0 with no alternative available. Please include a comments.php template in your theme. in /home/comsatkhira/public_html/wp-includes/functions.php on line 5580

Comments are closed.




© সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০১৮ Satkhiravision.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/comsatkhira/public_html/wp-includes/functions.php on line 5275