এস ভি ডেস্ক: বুলাওয়েতে অনুষ্ঠিত হওয়া তৃতীয় ওয়ানডেতে পাকিস্তানের কাছে বড় ব্যবধানে হেরেছে জিম্বাবুয়ে। পাকিস্তান তাদের হারিয়েছে ৯ উইকেটে। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটা ৩-০ ব্যবধানে জিতে নিল পাকিস্তান।

মার্চ মাসে দেশের মাঠে হওয়া বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব পার হতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। আর সেই ব্যর্থতা থেকে যখন দেশটি বের হওয়ার চেষ্টা করছিল ঠিক সে সময়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে চলতি ওয়ানডে সিরিজেও তাদের হার! আবার এমন হার! যেন, পাকিস্তান ফুঁ দিয়ে জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে দিল।

টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারের আগে সবকটি উইকেট হারিয়ে মাত্র ৬৭ রান তোলে জিম্বাবুয়ে। পাকিস্তান এই মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১ উইকেট হারিয়ে ২৪১ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায়। পাকিস্থানের ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে এটা ছিল সবচেয়ে বড় জয়। এর আগে ১৯৯০ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২০৬ বল বাকি রেখে জয়ের রেকর্ড গড়েছিল পাকরা।

জিম্বাবুয়ের সঙ্গে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেলো সরফরাজ বাহিনী। আগামী শুক্রবার (২০ জুলাই) নিজেদের চতুর্থ ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে মাঠে নামবে এ দুই দল।

প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে মাত্র ১০৭ রান করে অলআউট হয় জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয়টিতে করেছিলো ১৯৪। আর তৃতীয় ওয়ানডেতে লজ্জাজনক হারে সিরিজটা জিতে নিল পাকিস্তান।

ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানের পেসারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানরা। তৃতীয় ওয়ানডেতে ১৫ ওভারের মধ্যে ৭ উইকেট হারায় মাত্র ৪৩ রানে। সেখান থেকে নিজেদের সপ্তম সর্বনিম্ন ৬৭ রানেই শেষ হয় যায় তাদের ইনিংস। এই ইনিংসে দুইয়ের কোটা ছুঁয়েছে মাত্র তিনজন। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ১৬ রান করে চামু চিবাবার।

২২ রান খরচ করে ৫ উইকেট নেন ফাহিম আশরাফ। জুনায়েদ খান নেয় দুইটি উইকেট। ইয়াসির শাহ, শাদাব খান, উসমান খান নেন একটি করে উইকেট।

তবে এই সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম বলেই ইমামউল হককে হারিয়ে কিছুটা চাপে পরে যায় পাকিস্তান। তবে ফখর জামানের ২৪ বলে ৮ চারে ৪৩ রানের ঝোড়ো ইনিংসে সহজেই জিতে যায় সফরকারীরা। ১৯ রানে অপরাজিত ছিলেন বাবর আজম।